মঙ্গলবার, ৭ ডিসেম্বর ২০২১ইংরেজী, ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৮ বাংলা

আমাগো দুঃখডারে কেউ দেহে না ভাঙা রাস্তা দিয়ে চলি

নিজস্ব প্রতিবেদক

২০২১-১০-৩১ ১০:৪১:৪৯ /

দীর্ঘদিন ধরে খানাখন্দ, সামন্য বৃষ্টি হলেই হাটু পানি, চলে না কোন প্রকার যান বাহন, পায়ে হেটে চলার মত পরিবেশটুকুও নেই। বলছিলাম, গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের কোনাবাড়ি-কাশিমপুর রাস্তার কথা। প্রতিদিন অর্ধ লক্ষাধিক লোকের চলাচল এই রাস্তার ওপর দিয়ে। এছাড়াও শত শত পণ্যবাহী পরিবহনের একমাত্র ভরসা এই রাস্তা। শিল্প এলাকা হিসেবে এই রাস্তাটি এলাকাবাসীর জন্য খুবই গুরুত্বপূণ। দীর্ঘদিন ধরে চলাচলের অনুপোযোগী হয়ে পড়ে আছে। অথচ কর্তৃপক্ষের তেমন নজর নেই বললেই চলে। বছর তিনেক আগে জাইকার অর্থায়নে ১৬ কোটি ৭৫ লাখ টাকায় রাস্তাটি সংস্কার করা হলেও তা ৬ মাসও স্থায়ী হয়নি। সংস্কারের কয়েক মাস পরেই রাস্তার প্রতিটি ম্যানহলের ঢাকনা ভেঙে গেছে। বিভিন্ন অংশে ভয়ঙ্কর বড় বড় গর্তে পরিণত হয়ে রড বের হয়ে আছে। ভাঙ্গাচুরা আর খানাখন্দে ভরা এই রাস্তা দিয়ে প্রতিদিন প্রায় লক্ষাধিক মানুষের চলাচল। এদের মধ্যে বেশিরভাগ কারখানার পোশাক শ্রমিকের যাওয়া-আসার একমাত্র রাস্তা। সঠিক পরিকল্পনার অভাব আর ড্রেনেজ ব্যবস্থা না থাকায় সামন্য বৃষ্টি হলেই হাটু পানি জমে যায়। ফলে কষ্টের সীমা থাকে না এলাকাবাসীর। তবুও এই ভাঙাচুরা রাস্তা দিয়ে চলাচল করেন হাজার হাজার খেটে খাওয়া মানুষ। কোনাবাড়ি থেকে শুরু করে থানার সামনে, যমুনা পোশাক কারখানা, জরুন বাজার, মন্ডল (কটন ক্লাব) ডেল্টা পোশাক কারখানাসহ নরসিংহপুর অবদি রাস্তার বিভিন্ন স্থানে খানাখন্দ এবং হাঁটু পানি বেধে বেহাল দশায় পরিণত হয়। স্থানীয়রা জানান, গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের কোনাবাড়িসহ কাশিমপুরে রয়েছে বড় বড় শিল্প প্রতিষ্ঠান। শিল্প নগরী হিসেবে রাস্তা-ঘাটের তেমন উন্নতি হয়নি। এলাকার বাসিন্দারা বলছেন, আধুনিক যুগেও রাস্তা-ঘাটের তেমন বিপ্লব ঘটেনি এই সিটির পশ্চিম অঞ্চলে। পোশাক শ্রমিক আব্দুল মতিন জানান, এমন ভাঙাচুরা রাস্তা দেশের আর কোথাও দেখিনি। ১০ মিনিটের রাস্তা সময় লাগে প্রায় দেড়-দুঘন্টা। ওই শ্রমিক আরো জানান, দীর্ঘদিন ধরে পায়ে হেটে কর্মস্থলে আসা-যাওয়া করছি। রাস্তাটি ভাঙা এবং বড় বড় গর্তে পরিণিত হওয়ায় পায়ে হেটেও অনেক সময় যাওয়া যায় না। রাস্তাতো নয়, এ যেন মরণ ফাঁদ। তিনি বলেন, ভোটের সময় আসলেই নেতারা নানা প্রতিশ্রুতি দিয়ে বেড়ান আর ভোট চান। ভয়ঙ্কর ভাঙাচুরা রাস্তা দিয়ে প্রতিদিন অফিসে যেতে হয়, অথচ এখন আর আমাদের সমস্যাগুলো কেউ দেখেন না। এমন বড় বড় গর্ত থাকায় প্রতিনিয়ত জটলা সৃষ্টি হয়। অনেক সময় অফিসে যেতে দেরি হলে চাকুরি হারাতে হয়। মন্ডল গার্মেন্টস এর এক শ্রমিক জানান, হুনতাছি মেয়র জাহাঙ্গীর না কি এই রাস্তাডারে ৮০ ফুট বানাইবো, কই কিছুই তো দেহি না। ওই নারী শ্রমিক বলেন, আমাগো দুঃখডারে কেউ বুঝবো না। ভোটাভুটি আয়লেই এইডা হইবো-ওইডা হইবো হুনি কিছুই তো দেহি না। ভাঙাচুরা রাস্তা দিয়ে ডিউটিতে যাইতে হয় আপনেরা কেন দেহেন না এতো কষ্ট করি। কোনাবাড়ি জরুন এলাকার ব্যারিস্টার জাহিদ পাঠান জানান, কোনাবাড়ি-কাশিমপুর রাস্তাটি নিয়ে খুবই কষ্টে আছি। তিনি জানান, যমুনা গার্মেন্টস, কোনাবাড়ি থানার সামনে বড় বড় গর্ত হয়ে আছে। গাজীপুর সিটি বা কোন কাউন্সিলরের পক্ষ থেকে তেমন কোন সারাশব্দ পাচ্ছি না। এই রাস্তা দিয়ে চলতে গেলে ভোগান্তির শেষ নেই। কাশিমপুর এলাকার যুবলীগ নেতা মোঃ রিপন সরকার বলেন, কোনাবাড়ি থেকে নরসিংহপুর পর্যন্ত বছর তিনেক আগে ১৬ কোটি ৭৫ লাখ টাকায় সংস্কার করা হলেও তা তিন মাস পরেই ভেঙে খানাখন্দ হয়। তিনি জানান, এই রাস্তা সংস্কার কাজে ব্যাপক অনিয়ম করার ফলে রাস্তাটি ভেঙে গেছে। এ ব্যাপারে গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের অঞ্চল সাতের নির্বাহী প্রকৈৗশলী মোঃ হারুন অর রশিদ জানান, আগামী ডিসেম্বর মাসের দিকে চলাচলের উপযোগীর জন্য সংস্কার করা হবে টেন্ডার প্রক্রিয়াধীন। তাছাড়াও এই রাস্তাটি ৬০-ফুট প্রশস্তকরণের লক্ষ্যে ভূম অধিগ্রহণের কাজ প্রক্রিয়াধীন।

এ জাতীয় আরো খবর

শ্রীপুরে স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীতে দুঃস্থদের মুখে হাসি

শ্রীপুরে স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীতে দুঃস্থদের মুখে হাসি

শ্রীপুরে বিজয় দিবস উদযাপনে তৎপর প্রশাসন

শ্রীপুরে বিজয় দিবস উদযাপনে তৎপর প্রশাসন

গাজীপুরের কোনাবাড়িতে আবারো ঝুটগুদামে আগুন

গাজীপুরের কোনাবাড়িতে আবারো ঝুটগুদামে আগুন

চতুর্থ বারের মতো তরুণ সেরা করদাতা তৌহিদ হোসেন

চতুর্থ বারের মতো তরুণ সেরা করদাতা তৌহিদ হোসেন

গাজীপুরের মেয়র জাহাঙ্গীর আলমকে আওয়ামী লীগ থেকে বহিষ্কার

গাজীপুরের মেয়র জাহাঙ্গীর আলমকে আওয়ামী লীগ থেকে বহিষ্কার

শ্রীপুরে ফুটপাত দখল, রাস্তায়-ঘাটে যানজট নিরসনে বিশেষ সভা

শ্রীপুরে ফুটপাত দখল, রাস্তায়-ঘাটে যানজট নিরসনে বিশেষ সভা